হিলিতে সার সংকট বিপাকে কৃষক

75
হিলিতে সার সংকট বিপাকে কৃষক
হিলিতে সার সংকট বিপাকে কৃষক

হিলি প্রতিনিধি
দিনাজপুরের হাকিমপুরে শুরু হয়েছে আলু, শরিষা, গমসহ নানা ধরনের সবজির চাষ। মাঠে মাঠে আলুর বীজ বপনে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। আমন ধান প্রায় কাটা-মাড়াই শেষের দিকে। আলু চাষের জন্য জমি তৈরি সময় লাগে পর্যাপ্ত বিভিন্ন প্রকার সার। তবে সারের সংকট আর বেশি দামে কিনতে হচ্ছে অভিযোগ আলু চাষিদের। এদিকে কৃষি দপ্তর বলছেন পর্যাপ্ত পরিমাণ সার রয়েছে ডিলারদের নিকটে। আবার অনেক ডিলাররা বলছেন পর্যাপ্ত সার পাচ্ছেন না তারা।

হাকিমপুর উপজেলার (হিলি) বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা যায়, চলতি আমন ধানের কাটা-মাড়াই শেষের দিকে। আর আমন চাষিরা ধান কেটে ঐজমিতে আলু চাষের জন্য জমি তৈরি করছেন। এছাড়াও অনেক জমিতে আলুর বীজও বপন করতে শুরু করেছেন তারা। কিন্তু সার সংকট দেখাতে আর তা বেশি দামে ক্রয় করাতে লোকসান গুনতে হচ্ছে এসব কৃষকদের। মুলত আলু চাষে প্রয়োজন হয় পর্যাপ্ত সারের। সার ডিলারদের নিকট তারা চাহিদা তলোনায় টিএসপি ও ফসফেট সার পাচ্ছেন না।

কৃষকরা জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও আমন ধান কাটার পর এই জমিতে আলুর চাষ শুরু করেছেন তারা। গতবারও ভাল ফলন পেয়েছিলো এবারও ভাল ফলনের আশায় আলুর বীজ বপন করতে শুরু করেছেন কৃষকরা। আবহাওয়া ভাল থাকলে আলুর ভাল ফলন হকে। তবে টিএসপি ও ফসফেট সারের সংকট দেখা দিচ্ছে এবং ডিলার ও ব্যবসায়ীরা ১ হাজার ১০০ বস্তা টিএসপি সারের দাম নিচ্ছে প্রায় ১ হাজার ৬০০ টাকা। সার সরবরাহ ঠিক মত পেলে আলু চাষে আমরা আরও আগ্রহ হবেন হিলির কৃষকরা বলেও জানান তারা।

হাকিমপুর উপজেলার হরিহরপুর বাজারের সারের ডিলার মিজান জানান, বর্তমান আমাদের এলাকায় আলু ও সরিষার মৌসুম চলছে। এসব ফসল ফলাতে কৃষকের প্রচুর সারের প্রয়োজন হয়ে থাকে। তবে তাদের চাহিদা অনুযায়ী ১০ ভাগ সারও আমরা পাচ্ছি না। যার কারণে হয় তো কৃষকেরা হয়রানির শিকার হচ্ছে। তবে আমরা কৃষকদের নিকট সারের মুল্য বেশি নিচ্ছি না।

হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা কৃষি অফিসার ড. মমতাজ সুলতানা জানান, আলুর চাষের জন্য হিলির তিনটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় মোট ১৯ টি সারের ডিলার আছে। তাদের নিকট পর্যাপ্ত সার রয়েছে। সারের কোন সংকট নেই। তবে যদি কোন সারের ডিলার অনিয়ম কিংবা দাম বেশি নেয় তার প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।