দশমিনায় বিস্তীর্ন মাঠ জুড়ে হাসি সুর্য্যমুখী চাষে উজ্জ্বল সম্ভাবনা

158
দশমিনায় বিস্তীর্ন মাঠ জুড়ে সূর্য্যরে হাসি সুর্য্যমুখী চাষে উজ্জ্বল সম্ভাবনা

নাসির আহমেদ, দশমিনা (পটুয়াখালী)

পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নসহ চরাঞ্চলে বিস্তীর্ন মাঠ জুড়ে যেন হাসি বিরাজ করছে। সূর্য্যমুখী চাষ করায় বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এলাকার কৃষকরা নতুন করে স্বপ্ন দেখছে। আবাদ সংকল্প দেখে মনে হয় এমন পরিশ্রমী কৃষকদের জন্যই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কৃষিতে কৃষকরা নতুন করে সম্ভাবনা সৃষ্টি করছে।

উপজেলার সংকল্পিত কৃষকরা উপজেলার উত্তর বাঁশবাড়িয়া, মধ্য বাঁশবাড়িয়া, গছানী, ঢনঢনিয়া, চরহোসনাবাদ, নেহালগঞ্জ, আদমপুর, বহরমপুর, বগুরা, দশমিনা, হাজিকান্দা, গোলখালী, আরজবেগী, সৈয়দজাফর, লক্ষীপুর, নিজাবাদগোপালদী, বেতাগীসানকিপুর, জাফ্রাবাদ, মাছুয়াখালী, আলীপুর, যৌতা, খলিশাখালী, চাঁদপুরা, রণগোপালদী, আউনিয়াপুর, গুলি, চরঘুনি, চরবোরহান, চরশাহজালাল, চরহাদি গ্রামে এই বছর বাড়তি লাভের আশায় সূর্য্যমুখী আবাদ করছে।

উপজেলার চরহাদীর কৃষক জামাল গাজী জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর বেশি জমিতে সূর্য্যমুখীর আবাদ করছি। ব্লক পদ্ধতিতে কৃষক প্রায় ২০ একর জমির চাষাবাদ সম্পন্ন করেছে। আশানুরূপ ফলন পাবার সম্ভাবনা রয়েছে।
উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ জাফর আহম্মেদ বলেন, এই বছর কৃষকরা পরীক্ষামূলক ভাবে জমিতে সূর্য্যমুখীর আবাদ করছে। আশানুরূপ ফলন পেতে উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের নিয়ে নিয়মিত মাঠ পরিদর্শন করছি। কৃষকদেরকে ফসলের যত্ন নেয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।